কিশোরগঞ্জের রনচন্ডী সামছুল উলুম দাখিল মাদরাসার সুপার এর বিরুদ্ধে উপজেলা নিবাহী অফিসার বরাবর এলাকাবাসীর স্মারকলিপি প্রদান মোঃ সাহেব আলী স্টাফ রিপোর্টার।

কিশোরগঞ্জের রনচন্ডী সামছুল উলুম দাখিল মাদরাসার সুপার এর বিরুদ্ধে উপজেলা নিবাহী অফিসার বরাবর স্বারকলিপি প্রদান করেন রনচন্ডী ইউনিয়নের স্হায়ী বাসিন্দা এবং রনচন্ডী সামছুল উলুম দাখিল মাদরাসার শিক্ষাথীদের অভিভাবক ও স্হায়ীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবগ অভিযোগ করেন যে অএ মাদরাসার সুপারিন্টেন্ডেন্ট আব্দুল মতিন ২০১৯ সালে যোগদানের পর হইতে জামাত -শিবিরের পক্ষে প্রতিষ্ঠান বিরোধী সরকার বিরোধী, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে অবমাননা, প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষক -কমচারী হয়রানি, বিভিন্ন জাল -জালিয়াতি ও দূনীতিসহ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা ব্যবস্হাকে নষ্ট করিয়া আসিতেছে, ২০২২ সালে মাননীয় শিক্ষামন্রী ডাঃ দিপু মনির আদেশ অমান্য করিয়া পদ্মা সেতু উদ্বোধনের দিন ২৫, ০৬,২০২২ বাষিক পরীক্ষা গ্রহন করিয়াছে।

২০২৩ সালে ১৭ মাচ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন পালনকে বিদায়াত বলে ঘোষণা করিয়াছে। বিভিন্ন অযুহাতে শিক্ষাথী ও শিক্ষদের নিকট হইতে প্রায় ২,৫০,০০০/ টাকা আদায় করিয়া আত্মসাৎ করিয়াছে। কথায় কথায় শিক্ষকদের বরখাস্তের হুমকিসহ শিক্ষকদের বরখাস্ত করিয়া বিভিন্ন অথও সুবিধা ভোগ করিয়াছে। প্রতিষ্ঠানের এফডিআার হতে উত্তোলনকৃত ১,৩৫,০০০ / টাকার মধ্যে ৮৫,০০০ আত্মসাৎ করিয়াছে। মাদরাসার ৯৭ শতাংশ জমিতাহার আত্মীয়দের মাধ্যমে ভোগদখল করিতেছে। মাদরাসার শিক্ষার পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দাবী জানায়, এসময় বক্তারা কয়েকটি দাবি নিয়ে আলোচনা করে অএ প্রতিষ্ঠানের মাঠে এলাকার সচেতন মানুষ ও অভিভাবক বৃন্দ আর জোর দাবি জানায়, ১,অনতিবিলম্বে সুপার আব্দুল মতিনকে বরখাস্ত করতে হবে। ২,প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত কমিটি গঠনের ব্যবস্হা করতে হবে। ৩,মাদরাসার জমি উদ্ধার করতে হবে। আত্মসাৎ করা সমুদয় টাকা মাদরাসার তহবিলে ফিরিয়ে আনতে হবে এলাকার জনগন সকলেই মিলে উপজেলা নিবাহী অফিসার বরাবর স্বারক লিপি প্রদান করেন।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ