মোঃ এহছান এলাহীঃ জলঢাকা উপজেলা প্রতিনিধি।

তিস্তা ব্যারেজ বা তিস্তা সেচ প্রকল্প বাংলাদেশের সবচেয়ে বৃহত্তম সেচ প্রকল্প।

তিস্তা নদীর উপর নির্মিত তিস্তা ব্যারেজের একপাশে আছে লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলাধীন গড্ডিমারী ইউনিয়নের দোয়ানী গ্রাম এবং অন্য পাশে আছে নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলাধীন খালিসা চাপানী ইউনিয়নের ডালিয়া নামক স্থান।

রংপুর, দিনাজপুর, নীলফামারী ও বগুড়া জেলার অনাবাদী জমিতে সেচ সুবিধা প্রদানের জন্য ১৯৩৭ খ্রিষ্টাব্দে তৎকালীন সরকার তিস্তা ব্যারেজ তৈরীর পরিকল্পনা গ্রহণ করে।

 

পরবর্তীতে ১৯৭৯ সালে ৬১৫ মিটার দৈর্ঘ্যের ৪৪ রেডিয়াল ৫২ টি গেট বিশিষ্ট ব্যারেজের নির্মাণ কাজ শুরু হয় ।

১৯৯০ সালে তিস্তা ব্যারেজের কাজ শেষ হয়।

 

তিস্তা ব্যারেজের নদীর দুই পাশে গড়ে তোলা হয়েছে সবুজ বেষ্টনি।

এছাড়াও ব্যারেজ এলাকায় রয়েছে কয়েকটি পিকনিক স্পট। মনোরম পরিবেশ ও তিস্তা ব্যারেজের কালো পিচের রাস্তা ধরে ছুটে চলা কিংবা চারপাশের পরিবেশের মনভোলানো সৌন্দর্য্য এখানে আগত দর্শনার্থীদের এক অলৌকিক মায়ায় কাছে টানে।

 

বিভিন্ন জেলা থেকে ছুটে আসে হাজারো দর্শনার্থী তিস্তা ব্যারেজের মনভোলানো অপরুপ সৌন্দর্য উপভোগ করতে ।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ