তুহিনুর রহমান তালুকদারঃ ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি 

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের কৈলাশ গঞ্জ বাজারের বাসিন্দা বিবিয়ানা গ্যাস ফিল্ডের গাড়ী চালক শেফন মিয়ার জনৈকা (৮) বছরের শিশু কন্যাকে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে৷ এ ঘটনায় হবিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে ধর্ষিতার পিতা বাদী হয়ে ধর্ষণ মামলা দাযের করেছেন৷ বিজ্ঞ আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) হবিগঞ্জকে 

তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন বিজ্ঞ বিচারক

 শিশু নির্যাতন ও ধর্ষণের ঘটনায় এলাকায় নানা আলোচনা সমালোচনা ও নিন্দার ঝড় বইছে৷ ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে একটি কুচক্রী মহল নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে বলে ধর্ষিতার পিতা অভিযোগ করেন৷ ঘটনার বিবরণে প্রকাশ ও মামলার এজাহারে উল্লেখ: ওই উপজেলার কৈলাশ গঞ্জ বাজারের ভাড়াটে বাসিন্দা ও বিবিয়ানা গ্যাস ক্ষেত্রে নিয়োজিত গাড়ি চালক পৌর এলাকার শিবপাশা গ্রামের মৃত গৌছ মিয়ার ছেলে শেফন মিয়া বলেন,গত ৩০ আগষ্ট বিকাল ৫টায় তার শিশু কন্যা (৮) অন্যান্য শিশুদের সহিত খেলাধুলার একপর্যায়ে কৈলাশ গঞ্জ বাজারের নিকটবর্তী কল্যাণ পুর গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের পুত্র আবু বক্করের বাড়ির গোয়াল ঘরের সামনে যাওয়া মাত্রই মেয়েটির মুখে চাপা দিয়া ধরিয়া গোয়াল ঘরের ভেতরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে৷ এ ঘটনায় মেয়েটির রক্তক্ষরণ হলে তার সৎ মা ও প্রতিবেশীদের বিষয়টি অবহিত করে শিশুটি৷ এ বিষয়ে তৎকালীন সময় ধর্ষিতার পিতা নবীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে পুলিশ মামলা না নিয়ে আদালতে মামলা দায়েরের পরামর্শ দেন৷ অবশেষে গত ১৩ সেপ্টেম্বর হবিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালত-৩ এতে মামলা দায়ের করেন৷ মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) হবিগঞ্জকে তদন্তের নির্দেশ দেন আদালত৷ এরই প্রেক্ষিতে তদন্তকারী কর্মকর্তা এস,আই বাপ্পু বন্যি সঙ্গীয় পোর্স নিয়ে গত ৭ ডিসেম্বর দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে তদন্ত করেন, এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা বলেন,তদন্তের স্বার্থে সবকিছু বলা যাবেনা, তবে অধিকতর তদন্তের মাধ্যমে সুবিচার নিশ্চিত করা হবে৷ অপরদিকে ধর্ষিতার পিতা ও তার পরিবার ধর্ষকের কঠিন শাস্তির দাবী জানিয়েছেন প্রশাসনের নিকট

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ