বগুড়ার নন্দীগ্রামে গরুর মাংসে হাড্ডি কম চাওয়ার কারণে রুবেল হোসেন নামে একজন ক্রেতাকে রামদা দিয়ে কুপিয়েছে বাবু নামে এক কসাই। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার সর্ববৃহৎ ওমরপুরহাটে। কসাইয়ের মাংসকাটা রামদার আঘাতে আহত রুবেল হোসেন কে তৎক্ষনাৎ বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে।

এই ঘটনায় ভুক্তভোগী রুবেল হোসেন বাদী হয়ে নন্দীগ্রাম থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। আহত রুবেল হোসেন উপজেলার ১নং বুড়ইল ইউনিয়নের সরিষাবাদ গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার (১লা ডিসেম্বর) সকাল ১১টার দিকে রুবেল হোসেন ওমরপুর হাটে গরুর মাংস কিনতে যায়। বাবু কসাইয়ের দোকানে গিয়ে দেড় কেজি গরুর মাংস চাইলে বাবু কসাই মাংসে হাড্ডির পরিমান বেশি দেয়। এসময় ক্রেতা রুবেল হোসেন বাবু কসাইকে মাংসে হাড্ডির পরিমান কম দিতে বলে। এ নিয়ে দুজনের মাঝে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বাবু কসাই তার হাতে থাকা মাংস কাটা ধারালো রামদা দিয়ে ক্রেতা রুবেল হোসেন কে কোপ দেয়। এতে গুরুতর আহত হয় রুবেল হোসেন। পরে স্থানীয় ক্রেতারা রুবেলকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়।

এই ঘটনায় হাটে আসা ক্রেতাদের তোপের মুখে পড়ে পালিয়ে যায় বাবু কসাই। পরে হাট কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। হাটে আসা ক্রেতারা বলেন, এর আগেও বাবু কসাইয়ের বিরুদ্ধে ক্রেতাদের সাথে খারাপ আচরন ও অসুস্থ্য গরুর মাংস বিক্রির অভিযোগ রয়েছে। কিছু দিন পূর্বে অসুস্থ্য গরুর মাংস বিক্রির দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা করা হয়েছিল বাবু কসাইকে। প্রশাসনের পাশাপাশি হাট কর্তৃপক্ষকেও অভিযুক্ত বাবু কসাইয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানান সর্বস্তরের ক্রেতা সাধারন।

এই ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে, নন্দীগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজমগীর হোসাইন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ