অতর্কিত হামলার শিকার- অধ্যক্ষ ও সভাপতি আহত-৩

এম টি আই আহাদ মাহমুদ গাইবান্ধা প্রতিনিধি 

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে শোলাগাড়ী ঈদগাহ আলিম মাদ্রাসায় বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড থেকে আদেশ প্রাপ্ত হয়ে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ও সভাপতি তাদের দায়িত্ব গ্রহণ করতে মাদ্রাসায় গেলে মাদ্রাসার কতিথ ভূয়া অধ্যক্ষ মিনহাজ তার দলবল নিয়ে অতর্কিত হামলা করে ৩জনকে ছুরি দিয়ে আঘাত ও এলোপাতাড়ি মারপিট করে গুরুতর আহত করে। তাদেরকে ঘটনা স্থল থেকে উদ্ধার করে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। আহতরা হলেন শাহাদাত (৩২) পিতা মৃত : দুলাল মিয়া, শামাউন (৩০),পিতা মৃত : আঃ রহমান, আলামিন (৪০) পিতা মৃত : খাজা মিয়া।

জানা গেছে, শোলাগাড়ী ঈদগাহ আলিম মাদ্রাসায় দীর্ঘদিন ধরে কোন কমিটি না থাকায়, উক্ত মাদ্রাসার কৃষি বিষয়ক অধ্যাপক মিনহাজ উদ্দিন ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে এ্যাডহক কমিটি গঠন করে গোপনে নিয়োগ বানিজ্যসহ নানা অনিয়ম করে এবং নিজেকে ঐ মাদ্রাসার অধ্যক্ষ হিসেবে দাবি করেন। গত কিছু দিন পূর্বে মাদ্রাসা বোর্ড থেকে সিনিয়র পদাধিকার বলে মোজাহারুল ইসলামকে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ এবং জালাল উদ্দিন রুমিকে মাদ্রাসার সভাপতি নিযুক্ত করে মাদ্রাসা বোর্ড থেকে আদেশ দেয়। কিন্তু মিনহাজ গং বোর্ডের আদেশ অমান্য করে তাদেরকে বিভিন্নভাবে মারপিট ও হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল। বোর্ডের আদেশে অধ্যক্ষ মোজাহারুল ইসলাম এবং সভাপতি তাদের দায়িত্ব গ্রহণ করতে মাদ্রাসায় গেলে ভূয়া অধ্যক্ষ মিনহাজ গংরা দলবল নিয়ে দেশিয় অস্ত্রে শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী হামলা করে। নব নিযুক্ত অধ্যক্ষ ও সভাপতিকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে ধারালো ছুরি দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে আঘাত করে গুরুতর আহত করে। 

স্থানীয় এলাকাবাসীর জানায়, মিনহাজ এই মাদ্রাসায় আসার পর থেকে মাদ্রাসাটি ধ্বংস করে ফেলেছে। সে এই মাদ্রাসায় গোপনে লোক নিয়োগ দিয়ে দেড় কোটি টাকা বানিজ্য করেছে।সে মাদ্রাসায় কোন কাজ না করে সব টাকা আত্মসাৎ করছে। এর কঠিন বিচার চান স্থানীয় এলাকাবাসী।

পোস্টটি শেয়ার করুনঃ